ঢাকা ১১:৪১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
৮ মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও নিয়ে চিন্তিত সীমা সরকার দেশজুড়ে তোলপাড়! বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি জেলা কমিটি অনুমোদন সভাপতি কামরুজ্জামান সম্পাদক বাদশা এটিএন বাংলার চায়ের চুমুকে সংগঠক ও বিনোদন সাংবাদিক আবুল হোসেন মজুমদার ৭ ঘণ্টা অন্ধকারে রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের প্রধান কার্যালয় টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রদের সাথে বিকৃত যৌনাচার শিক্ষক’কে গ্রেফতার করেছে: সিআইডি সীতাকুণ্ডে হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন সীতাকুণ্ডে ট্রাকে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কা, চালক নিহত চট্টগ্রাম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে বাকেরগঞ্জে দোয়া মিলাদ অনুষ্ঠিত

অবহেলিত বাকেরগঞ্জে কাংখিত ও দৃশ্যমান উন্নয়ন করব চেয়ারম্যান প্রার্থী বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশা!

  • আপডেট সময় : ০৮:১৪:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪
  • ২০২৪ বার পড়া হয়েছে

খান মেহেদী :- বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। আগামী ৮ মে অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। প্রার্থীরা প্রতীক নিয়ে ঘুরছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। এরই মধ্যে নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের নিয়ে ভোটারদের মধ্যে শুরু হয়েছে নানান জল্পনা কল্পনা।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রতীক না থাকায় ভোটের রাজনীতিতে প্রার্থীদের ব্যক্তি ইমেজের গুরুত্ব দিচ্ছেন ভোটাররা। ভোটারদের কাছে টানতে উপজেলা জুরেই চলছে গণসংযোগ সভা সমাবেশ। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও এর রেশ পড়েছে। ভোটাররা তাদের পছন্দসই প্রার্থীকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জয়ী করতে ফেসবুকে জানান দিচ্ছেন একের পর একস্বতঃস্ফূর্ত মতামত।

স্থানীয় পর্যায়ে দূরদর্শী নেতৃত্বের অভাবে বাকেরগঞ্জ উপজেলা দীর্ঘদিন ধরে পিছিয়ে আছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের জোয়ারের মধ্যেও শুধুমাত্র যোগ্য নেতৃত্বের অভাবে বৃহত্তম এই উপজেলা এখনো অবহেলিত। স্থানীয় সরকারের নানান ব্যর্থতায় কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে আসা উন্নয়ন বরাদ্দ থেকে বঞ্চিত ছিল উপজেলা বাসি। সদ্য অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেজর জেনারেল হাফিজ মল্লিক এমপি নির্বাচিত হয়ে উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, রাস্তাঘাট, অবকাঠামো, মানবসম্পদসহ উন্নয়নে নতুন রূপ নিয়েছেন। আর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাফিজ মল্লিক কে এমপি নির্বাচিত করায় বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশার ভূমিকা ছিল অপরিসীম।

দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশা ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জড়িত রয়েছেন। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্মসাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন। জাতীয় রাজনীতি ও স্থানীয় রাজনীতির পাশাপাশি এলাকার আর্থসামাজিক, সাংস্কৃতিক, শিক্ষা ও ধর্মীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডে অবদান রেখে আসছেন দীর্ঘদিন থেকে। বর্তমান এমপির একান্ত প্রিয়জন হিসেবে বিশ্বস্ততার সাথে দায়িত্ব পালনের সুবাদে উপজেলা জুড়ে মতিউর রহমান বাদশার রয়েছে ব্যাপক পরিচিতি। জনসম্পৃক্ততা ও স্বচ্ছ ব্যক্তি ইমেজের কারণে এলাকায় তার নিজস্ব ভোট ব্যাংকও রয়েছে। আর যে কারণে এখন ১৪ টি ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যানসহ ইউপি সদস্যরা বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশাকে নির্বাচিত করতে আনারস মার্কার প্রতিক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে রয়েছে। কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশার সাংগঠনিক দক্ষতায় স্থানীয় নেতকর্মীদের মন জয় করে নিয়েছেন। যে কারণেই প্রতিদিন বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে নেতাকর্মী জনপ্রতিনিধি পৌর কাউন্সিলর মতিউর রহমান বাদশার নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন পর বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একটি সুবর্ণ সুযোগ এসেছে। উপজেলার উন্নয়নর তরান্বিত করতে বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশাকে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করতে হবে।

বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশা বলেন, দীর্ঘদিন ক্ষমতার কাছাকাছি থেকেও আমি তার অপব্যবহার যেমন করিনি তেমনি রাজনীতিকে সম্পদ অর্জনের সিড়ি হিসাবেও বিবেচনা করিনি। আমার কাজের জন্য যাতে আমার পরিবার পরিজন, বন্ধু-বান্ধব তথা এলাকাবাসীর মুখে যাতে চুনকালি না পড়ে সেজন্য আমি সর্বদা সচেতন ছিলাম, এখনও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশাআল্লাহ। আমার প্রতি জনগণের আস্থা যেনো আমৃত্যু ধরে রাখতে পারি সেজন্য সবার দোয়া ও আশির্বাদ চাই। আমি বিশ্বাস করি মানুষের আস্থা অর্জন করার চেয়ে মহৎ কোন কাজ একজন রাজনৈতিক কর্মীর আর হতে পারেনা।
আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে অবহেলিত বাকেরগঞ্জে কাংখিত ও দৃশ্যমান উন্নয়ন করব।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

৮ মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ভিডিও নিয়ে চিন্তিত সীমা সরকার দেশজুড়ে তোলপাড়!

অবহেলিত বাকেরগঞ্জে কাংখিত ও দৃশ্যমান উন্নয়ন করব চেয়ারম্যান প্রার্থী বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশা!

আপডেট সময় : ০৮:১৪:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

খান মেহেদী :- বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। আগামী ৮ মে অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। প্রার্থীরা প্রতীক নিয়ে ঘুরছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। এরই মধ্যে নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের নিয়ে ভোটারদের মধ্যে শুরু হয়েছে নানান জল্পনা কল্পনা।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রতীক না থাকায় ভোটের রাজনীতিতে প্রার্থীদের ব্যক্তি ইমেজের গুরুত্ব দিচ্ছেন ভোটাররা। ভোটারদের কাছে টানতে উপজেলা জুরেই চলছে গণসংযোগ সভা সমাবেশ। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও এর রেশ পড়েছে। ভোটাররা তাদের পছন্দসই প্রার্থীকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জয়ী করতে ফেসবুকে জানান দিচ্ছেন একের পর একস্বতঃস্ফূর্ত মতামত।

স্থানীয় পর্যায়ে দূরদর্শী নেতৃত্বের অভাবে বাকেরগঞ্জ উপজেলা দীর্ঘদিন ধরে পিছিয়ে আছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের জোয়ারের মধ্যেও শুধুমাত্র যোগ্য নেতৃত্বের অভাবে বৃহত্তম এই উপজেলা এখনো অবহেলিত। স্থানীয় সরকারের নানান ব্যর্থতায় কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে আসা উন্নয়ন বরাদ্দ থেকে বঞ্চিত ছিল উপজেলা বাসি। সদ্য অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেজর জেনারেল হাফিজ মল্লিক এমপি নির্বাচিত হয়ে উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, রাস্তাঘাট, অবকাঠামো, মানবসম্পদসহ উন্নয়নে নতুন রূপ নিয়েছেন। আর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাফিজ মল্লিক কে এমপি নির্বাচিত করায় বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশার ভূমিকা ছিল অপরিসীম।

দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশা ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জড়িত রয়েছেন। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্মসাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন। জাতীয় রাজনীতি ও স্থানীয় রাজনীতির পাশাপাশি এলাকার আর্থসামাজিক, সাংস্কৃতিক, শিক্ষা ও ধর্মীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডে অবদান রেখে আসছেন দীর্ঘদিন থেকে। বর্তমান এমপির একান্ত প্রিয়জন হিসেবে বিশ্বস্ততার সাথে দায়িত্ব পালনের সুবাদে উপজেলা জুড়ে মতিউর রহমান বাদশার রয়েছে ব্যাপক পরিচিতি। জনসম্পৃক্ততা ও স্বচ্ছ ব্যক্তি ইমেজের কারণে এলাকায় তার নিজস্ব ভোট ব্যাংকও রয়েছে। আর যে কারণে এখন ১৪ টি ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যানসহ ইউপি সদস্যরা বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশাকে নির্বাচিত করতে আনারস মার্কার প্রতিক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে রয়েছে। কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশার সাংগঠনিক দক্ষতায় স্থানীয় নেতকর্মীদের মন জয় করে নিয়েছেন। যে কারণেই প্রতিদিন বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে নেতাকর্মী জনপ্রতিনিধি পৌর কাউন্সিলর মতিউর রহমান বাদশার নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন পর বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একটি সুবর্ণ সুযোগ এসেছে। উপজেলার উন্নয়নর তরান্বিত করতে বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশাকে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করতে হবে।

বিশ্বাস মতিউর রহমান বাদশা বলেন, দীর্ঘদিন ক্ষমতার কাছাকাছি থেকেও আমি তার অপব্যবহার যেমন করিনি তেমনি রাজনীতিকে সম্পদ অর্জনের সিড়ি হিসাবেও বিবেচনা করিনি। আমার কাজের জন্য যাতে আমার পরিবার পরিজন, বন্ধু-বান্ধব তথা এলাকাবাসীর মুখে যাতে চুনকালি না পড়ে সেজন্য আমি সর্বদা সচেতন ছিলাম, এখনও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশাআল্লাহ। আমার প্রতি জনগণের আস্থা যেনো আমৃত্যু ধরে রাখতে পারি সেজন্য সবার দোয়া ও আশির্বাদ চাই। আমি বিশ্বাস করি মানুষের আস্থা অর্জন করার চেয়ে মহৎ কোন কাজ একজন রাজনৈতিক কর্মীর আর হতে পারেনা।
আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে অবহেলিত বাকেরগঞ্জে কাংখিত ও দৃশ্যমান উন্নয়ন করব।