ঢাকা ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
জাতীয় সংবাদ পরিষদের সভাপতি নূর হাকিম সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী নান্টু পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নিজের ঘরে নিজে আগুন দিয়ে মিথ্যা মামলায় হয়রানি গ্রামবাসীদের ফাঁসানোর চেষ্টা! সেুঁজুতির মনোনয়ন নিয়ে সাতক্ষীরায় তোলপাড়, শশুর রাজাকার! ভাসুর বিএনপি নেতা সাতকানিয়া ছদাহা জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করে অবৈধভাবে মাটি কাটায় ৫০ (হাজার) টাকা জরিমানা বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের ববি শাখার নেতৃত্বে ইব্রাহিম-শান্ত প্রতারণার মামলায় যুব-মহিলালীগ নেত্রী ও তার স্বামী রিমান্ডে শাহজালালে যৌথ অভিযানে ২ কেজি ১০৪ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার, গ্রেফতার ৪ যাত্রী গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী জাতীয় যুব কাউন্সিলের সভাপতি:মাসুদ আলম ইয়াংছা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত রামেবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

ধানসিঁড়ি’র তীরে হলুদের সমারহ

  • মাসুদ রানা
  • আপডেট সময় : ০১:৫৮:৫১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৩
  • ২২৭৫ বার পড়া হয়েছে

আমির হোসেন,ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির ধানসিঁড়ি নদীর তীরের বিভিন্ন স্থানের বেড়িবাঁধে ও ঝালকাঠির চার উপজেলার মাঠগুলো সরিষা ফুলের হলুদ রঙে রঞ্জিত হয়েছে। নদীর তীর ও মাঠজুড়ে শুধু হলুদ ফুল।

ঝালকাঠি সদর উপজেলার সাচিলাপুর গ্রামে ধানসিঁড়ি নদীর তীরের বেরিবাধে ও বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে।

ঝালকাঠি জেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানাগেছে, ঝালকাঠি জেলায় বারি ১৪, বারি ১৬, বারি ১৭, বিনা ৪ ও বিনা ৯ জাতের সরিষার চাষ হয়েছে। ঝালকাঠি জেলায় এবছর ৮০৫ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ হয়েছে। যা গত ৫ বছরের তুলনায় এবছর দ্বিগুণ সরিষার চাষাবাদ হয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, ঝালকাঠিতে সরিষার আবাদ ভালো হয়েছে। বাম্পার ফলনের হাতছানিতে কৃষকের চোখেমুখে আনন্দের ঝিলিক। এবার সরিষার হলুদ ফুলে ছেয়ে গেছে প্রত্যেকটি সরিষা ক্ষেত। কৃষকরা ও কৃষি বিভাগ জানান, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে চলতি মৌসুমে এ অঞ্চলে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা তাদের।

সরিষা ফুলের হলুদ রঙে অপরূপ শোভা ধারণ করেছে নদীর তীর ও মাঠঘাট। দুরন্ত শিশু, কিশোর কিশোরীরা আনন্দে আত্মহারা হয়ে মাঠে ছুটাছুটি করছে। মাঠে পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। সরিষার ফুলের চারপাশে মৌমাছির আনাগোনা বেড়ে গেছে।

ঝালকাঠি সদর উপজেলার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের ধানসিঁড়ি নদীর তীরের চাষি সাচিলাপুর গ্রামের কৃষক তৈয়ব আলী জানান, এবছর ১ একর জমিতে সরিষা চাষ করেছি। গাছে অনেক ভালো ফুল ধরেছে। আশা করা যায় ফলন ভালো হবে।

নলছিটি উপজেলার বারইকরণ গ্রামের কৃষক আরমান মিয়া জানান, আমি ১ একর জমিতে সরিষার চাষ করেছি। মাঠে অনেক ফুল ফুটেছে। আশা করছি ফলন ভালো হবে। সরিষায় ধানের চেয়ে অধিক লাভজনক হওয়ায় প্রতিবছরের মতো এবারও চাষ করেছি।

এ বিষয় ঝালকাঠি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. মনিরুল ইসলাম জানান, ঝালকাঠিতে এবছর চার উপজেলায় ৮০৫ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ হয়েছে। ৫টি জাতের সরিষার ভালো মানের বীজ ও সার কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করা হয়েছে। পাশাপাশি কৃষকদের নিয়মিত পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি। তবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবার সরিষার ভালো ফলন হবে বলে আশা করছি। সাধারণত মাঘ ও ফাল্গুন মাসে কৃষকেরা ঘরে সরিষা তুলতে পারবেন। ধান বা অন্য ফসলের তুলনায় লাভজনক হওয়ায় কৃষকেরা দিন দিন সরিষা চাষের দিকে ঝুঁকছেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

জাতীয় সংবাদ পরিষদের সভাপতি নূর হাকিম সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী নান্টু

ধানসিঁড়ি’র তীরে হলুদের সমারহ

আপডেট সময় : ০১:৫৮:৫১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৩

আমির হোসেন,ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির ধানসিঁড়ি নদীর তীরের বিভিন্ন স্থানের বেড়িবাঁধে ও ঝালকাঠির চার উপজেলার মাঠগুলো সরিষা ফুলের হলুদ রঙে রঞ্জিত হয়েছে। নদীর তীর ও মাঠজুড়ে শুধু হলুদ ফুল।

ঝালকাঠি সদর উপজেলার সাচিলাপুর গ্রামে ধানসিঁড়ি নদীর তীরের বেরিবাধে ও বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে।

ঝালকাঠি জেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানাগেছে, ঝালকাঠি জেলায় বারি ১৪, বারি ১৬, বারি ১৭, বিনা ৪ ও বিনা ৯ জাতের সরিষার চাষ হয়েছে। ঝালকাঠি জেলায় এবছর ৮০৫ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ হয়েছে। যা গত ৫ বছরের তুলনায় এবছর দ্বিগুণ সরিষার চাষাবাদ হয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, ঝালকাঠিতে সরিষার আবাদ ভালো হয়েছে। বাম্পার ফলনের হাতছানিতে কৃষকের চোখেমুখে আনন্দের ঝিলিক। এবার সরিষার হলুদ ফুলে ছেয়ে গেছে প্রত্যেকটি সরিষা ক্ষেত। কৃষকরা ও কৃষি বিভাগ জানান, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে চলতি মৌসুমে এ অঞ্চলে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা তাদের।

সরিষা ফুলের হলুদ রঙে অপরূপ শোভা ধারণ করেছে নদীর তীর ও মাঠঘাট। দুরন্ত শিশু, কিশোর কিশোরীরা আনন্দে আত্মহারা হয়ে মাঠে ছুটাছুটি করছে। মাঠে পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। সরিষার ফুলের চারপাশে মৌমাছির আনাগোনা বেড়ে গেছে।

ঝালকাঠি সদর উপজেলার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের ধানসিঁড়ি নদীর তীরের চাষি সাচিলাপুর গ্রামের কৃষক তৈয়ব আলী জানান, এবছর ১ একর জমিতে সরিষা চাষ করেছি। গাছে অনেক ভালো ফুল ধরেছে। আশা করা যায় ফলন ভালো হবে।

নলছিটি উপজেলার বারইকরণ গ্রামের কৃষক আরমান মিয়া জানান, আমি ১ একর জমিতে সরিষার চাষ করেছি। মাঠে অনেক ফুল ফুটেছে। আশা করছি ফলন ভালো হবে। সরিষায় ধানের চেয়ে অধিক লাভজনক হওয়ায় প্রতিবছরের মতো এবারও চাষ করেছি।

এ বিষয় ঝালকাঠি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. মনিরুল ইসলাম জানান, ঝালকাঠিতে এবছর চার উপজেলায় ৮০৫ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ হয়েছে। ৫টি জাতের সরিষার ভালো মানের বীজ ও সার কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করা হয়েছে। পাশাপাশি কৃষকদের নিয়মিত পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি। তবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবার সরিষার ভালো ফলন হবে বলে আশা করছি। সাধারণত মাঘ ও ফাল্গুন মাসে কৃষকেরা ঘরে সরিষা তুলতে পারবেন। ধান বা অন্য ফসলের তুলনায় লাভজনক হওয়ায় কৃষকেরা দিন দিন সরিষা চাষের দিকে ঝুঁকছেন।