ঢাকা ০৬:৩৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মধুপুরে বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে জরিমানা বদলগাছী উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি সানাউল হক হিরোর বিরুদ্ধে ছাগল চুরির অভিযোগ মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি একযুগ পর এসআই পরেশ কারবারি হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেপ্তার বাকেরগঞ্জে চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ না করেই প্রকল্পের টাকা উত্তোলন প্রকাশ হলো সুজন-তুলসীর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র “কলেজ গার্ল” গাজীপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে সাংবাদিকের গাছপালা কেটে ক্ষতিসাধন মধুপুরে প্রাইভেটকার ও মাহিন্দ্রার মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২ আহত ৮ শিল্পী সমিতির সদস্যদের জন্য ১০ লাখ টাকা অনুদান দিলেন ডিপজল জুড়ী নদীর বাঁধে ভাঙন ভাঙনকবলিত স্থান পরিদর্শনে যান উপজেলা চেয়ারম্যান কিশোর রায় চৌধুরী মনি

পবায় গ্রীণ অটো ব্রিকস লিমিটেডের বিষাক্ত ধোঁয়ায় ৩০০ বিঘা ফসলি জমি ক্ষতিগ্রস্ত

  • মাসুদ রানা
  • আপডেট সময় : ০৩:২২:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ২১৫৭ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ-রাজশাহীর পবা উপজেলায় নওহাটা গ্রীন ব্রিকস লিমিটেডের বিষাক্ত ধোঁয়ায় ৩০০ বিঘা কৃষি জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নওহাটা পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের পালোপাড়া উত্তরের ৫০ জন কৃষি জমি মালিকের গণ স্বাক্ষরিত অভিযোগ জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), পরিবেশ অধিদপ্তর, অফিসার ইনচার্জ পবাকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।

২৫ সেপ্টেম্বর ( সোমবার) গণস্বাক্ষরিত অভিযোগগুলো উক্ত দপ্তরে দেওয়া হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নওহাটা পৌরসভার পালোপাড়া গ্রামের অধিকাংশ মানুষ হত-দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষ। পালোপাড়া গ্রামের অধিকাংশ মানুষের অর্থ আয়ের উৎস হলো কৃষি দিন মজুর। প্রচুর পরিশ্রম ও দিন মজুরের মাধ্যমে কোন রকম জীবন জীবিকা পরিচালনা করে থাকেন। উপজেলা পবা ও মোহনপুর এর মাঝখানে নওহাটা এনজিবিএল গ্রীণ অটো ব্রিকস লিমিটেড অবস্থিত। উপজেলা পবা এর ১০৪ নং আলাইবিদির ও ১০২ নং পালোপাড়া মৌজা এবং উপজেলা মোহনপুর এর ৭৫ নং বসন্তকেদার মৌজার কৃষি ফসলি জমির ধান, পটল, বেগুনসহ বয়স্ক, শিশুসহ সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রায় ৩০০ বিঘা ফসলি জমি পুড়ে গেছে। ভাটাটি বন্ধে ও কৃষকদের বাঁচাতে তাঁরা উপজেলা প্রশাসনের নিকট ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এসব বিষয়ে জানতে এনজিবিএল গ্রীণ অটো ব্রিকস লিমিটেড এর মালিক লিংকন ও মান্নানকে একাধিকবার ফোন দিয়ে পাওয়া যায়নি। সরেজমিনে গেলে উক্ত ভাটার কেউ মিডিয়ায় কথা বলতে রাজি হয়নি।

কথা বললে রাজশাহী পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মাহমুদা পারভীন জানান, কৃষকদের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন ফাইল দেখে বলতে হবে।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আবু সালেহ মোহাম্মদ হাসনাত বলেন, কৃষকদের লিখিত অভিযোগ পেয়ে কৃষি অফিসার নিয়ে সরেজমিনে তদন্ত করেছি। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা করে ভাটা মালিকের নিকট থেকে সমুদয় অর্থ আদায় করে তা কৃষকদের দেওয়া হবে।তিনি আরও বলেন, বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয় অবগত আছেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

মধুপুরে বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে জরিমানা

পবায় গ্রীণ অটো ব্রিকস লিমিটেডের বিষাক্ত ধোঁয়ায় ৩০০ বিঘা ফসলি জমি ক্ষতিগ্রস্ত

আপডেট সময় : ০৩:২২:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ-রাজশাহীর পবা উপজেলায় নওহাটা গ্রীন ব্রিকস লিমিটেডের বিষাক্ত ধোঁয়ায় ৩০০ বিঘা কৃষি জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নওহাটা পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের পালোপাড়া উত্তরের ৫০ জন কৃষি জমি মালিকের গণ স্বাক্ষরিত অভিযোগ জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), পরিবেশ অধিদপ্তর, অফিসার ইনচার্জ পবাকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।

২৫ সেপ্টেম্বর ( সোমবার) গণস্বাক্ষরিত অভিযোগগুলো উক্ত দপ্তরে দেওয়া হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নওহাটা পৌরসভার পালোপাড়া গ্রামের অধিকাংশ মানুষ হত-দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষ। পালোপাড়া গ্রামের অধিকাংশ মানুষের অর্থ আয়ের উৎস হলো কৃষি দিন মজুর। প্রচুর পরিশ্রম ও দিন মজুরের মাধ্যমে কোন রকম জীবন জীবিকা পরিচালনা করে থাকেন। উপজেলা পবা ও মোহনপুর এর মাঝখানে নওহাটা এনজিবিএল গ্রীণ অটো ব্রিকস লিমিটেড অবস্থিত। উপজেলা পবা এর ১০৪ নং আলাইবিদির ও ১০২ নং পালোপাড়া মৌজা এবং উপজেলা মোহনপুর এর ৭৫ নং বসন্তকেদার মৌজার কৃষি ফসলি জমির ধান, পটল, বেগুনসহ বয়স্ক, শিশুসহ সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রায় ৩০০ বিঘা ফসলি জমি পুড়ে গেছে। ভাটাটি বন্ধে ও কৃষকদের বাঁচাতে তাঁরা উপজেলা প্রশাসনের নিকট ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এসব বিষয়ে জানতে এনজিবিএল গ্রীণ অটো ব্রিকস লিমিটেড এর মালিক লিংকন ও মান্নানকে একাধিকবার ফোন দিয়ে পাওয়া যায়নি। সরেজমিনে গেলে উক্ত ভাটার কেউ মিডিয়ায় কথা বলতে রাজি হয়নি।

কথা বললে রাজশাহী পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মাহমুদা পারভীন জানান, কৃষকদের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন ফাইল দেখে বলতে হবে।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আবু সালেহ মোহাম্মদ হাসনাত বলেন, কৃষকদের লিখিত অভিযোগ পেয়ে কৃষি অফিসার নিয়ে সরেজমিনে তদন্ত করেছি। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা করে ভাটা মালিকের নিকট থেকে সমুদয় অর্থ আদায় করে তা কৃষকদের দেওয়া হবে।তিনি আরও বলেন, বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয় অবগত আছেন।