ঢাকা ১২:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাকেরগঞ্জে চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ না করেই প্রকল্পের টাকা উত্তোলন প্রকাশ হলো সুজন-তুলসীর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র “কলেজ গার্ল” গাজীপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে সাংবাদিকের গাছপালা কেটে ক্ষতিসাধন মধুপুরে প্রাইভেটকার ও মাহিন্দ্রার মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২ আহত ৮ শিল্পী সমিতির সদস্যদের জন্য ১০ লাখ টাকা অনুদান দিলেন ডিপজল জুড়ী নদীর বাঁধে ভাঙন ভাঙনকবলিত স্থান পরিদর্শনে যান উপজেলা চেয়ারম্যান কিশোর রায় চৌধুরী মনি বিএনপি নেতার বাড়িতে আওয়ামী লীগ নেতাদের গোপন বৈঠক, গৌরনদীতে ব্যাপক তোলপাড় ! দেশীয় তৈরী বন্ধুকসহ একাদিক মামলার আসামী নিজাম উদ্দিন’কে গ্রেফতার করেছে দাগনভূঁঞা থানা পুলিশ গরিব ও অসহায় মানুষদের লাখপতি করাই যার নেশা ! বর্ণাঢ্য আয়োজনে কলসকাঠী তে ঈদ পুনর্মিলনী উদযাপিত

প্রিয় মানুষের কাছে কখনো সস্তা হতে নাই। সস্তা হলেই গুরুত্ব কমা শুরু হয়!

  • আপডেট সময় : ০১:৫৫:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২৩
  • ২২০৮ বার পড়া হয়েছে

 খান মাহাদী:- পৃথিবীর সবকিছুরই একটা নির্দিষ্ট আবেদন থাকে। এই আবেদন যতক্ষণ কাজ করে টানও ততক্ষণ কাজ করে, আবেদন শেষ টানও শেষ। সস্তা হয়ে গেলে আবেদন কমে যায়। তাই সস্তা হওয়া যাবেনা।

মানুষটা উঠতে বসতে আপনাকে পেইন দেয়, আপনি কষ্ট পান, তার সামনে এসে কান্না করেন। এইতো নিজেকে সস্তা করে ফেললেন। প্রিয় মানুষ পেইন দিলে কষ্ট পাওয়া স্বাভাবিক। আড়ালে কাঁদতে হবে। সামনে কাঁদা যাবেনা। সামনে কাঁদা মানে আবেদন হারানো। সে বারবার কষ্ট দিবে আপনি বারবার কাঁদবেন, এতে সে আপনার কষ্টে সমব্যথী না হয়ে উলটো বিরক্ত হবে। মনে রাখবেন, কষ্টের কথা একবার শুনতেই কষ্ট লাগে, বারবার শুনতে বিরক্ত লাগে।

মানুষটা বারবার চলে যাওয়ার হুমকি দেয়, আপনি কান্নাকাটি করে ধরে রাখেন, ইমোশনাল কথা বলে ফেরান। ইমোশন কেটে গেলে সে আবার চলে যেতে চায়, আপনি হাত পা ধরে ফেরানোর চেষ্টা করেন। ওয়েট, এতটা সস্তা করবেন না নিজেকে। যার যাওয়ার সে যাবেই। এভাবে ধরে বেঁধে রেখে কিচ্ছু হবেনা। তাকে চলে যেতে দিন। থাকার হলে সে নিজেই থাকবে, যাওয়ার হলে চলে যাবে। মনে রাখবেন, প্রিয় মানুষ দূরে গেলে আরো বেশি আপন হয়ে যায়। যে আপনাকে ছেড়ে গেছে সেও যদি আপনাকে প্রিয় মানুষ ভাবে তাহলে তো আপন লাগার কথা। সে আপন লাগা থেকে ফেরার কথা, না ফিরলে বুঝবেন আপনি আর তার প্রিয় মানুষের তালিকায় নেই। কাঁদবেন তখন, খুব কাঁদবেন। তবে একা একা, তার সামনে নয়। তাকে দেখাতে হবে আপনি ভাল আছেন।

তার সবকিছু জানার অধিকার আপনার আছে। যখন এই অধিকার সে খর্ব করা শুরু করবে তখন ভয় পান। এটা স্রেফ আপনার মাথায় বন্দুক ধরে নিজে চলে যাওয়ার চেষ্টা। অর্থাৎ সে চলে যাবে দোষ আপনার। আপনি তার ব্যক্তিগত স্বাধীনতা খর্ব করছেন, তাই চলে যাচ্ছে সে। যেতে দিন, হাত পা ধরে নিজেকে সস্তা করবেন না। তার মনে এখন যাওয়ার ঢেউ। এই ঢেউ ফেরানোর ক্ষমতা আপনার নেই। চুপচাপ থাকেন। নিজের আবেদন বজায় রাখুন। আপনার এই চুপচাপ থাকা তাকে ভেতর ভেতর একটু হলেও পোড়াবে। সবাই দাম চায়, দাম না পেলে সবারই পোড়ায়।

যে কোন পরিস্থিতিতে নিজেকে শক্ত রাখুন। তার সামনে নিজের দুর্বলতা প্রকাশ করবেন না। নিজের ব্যক্তিত্ব বজায় রাখবেন। দেখবেন আবেদন বাড়ছে, জাস্ট এটুকুই মেনে চলবেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

বাকেরগঞ্জে চেয়ারম্যান হানিফ তালুকদার কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ না করেই প্রকল্পের টাকা উত্তোলন

প্রিয় মানুষের কাছে কখনো সস্তা হতে নাই। সস্তা হলেই গুরুত্ব কমা শুরু হয়!

আপডেট সময় : ০১:৫৫:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২৩

 খান মাহাদী:- পৃথিবীর সবকিছুরই একটা নির্দিষ্ট আবেদন থাকে। এই আবেদন যতক্ষণ কাজ করে টানও ততক্ষণ কাজ করে, আবেদন শেষ টানও শেষ। সস্তা হয়ে গেলে আবেদন কমে যায়। তাই সস্তা হওয়া যাবেনা।

মানুষটা উঠতে বসতে আপনাকে পেইন দেয়, আপনি কষ্ট পান, তার সামনে এসে কান্না করেন। এইতো নিজেকে সস্তা করে ফেললেন। প্রিয় মানুষ পেইন দিলে কষ্ট পাওয়া স্বাভাবিক। আড়ালে কাঁদতে হবে। সামনে কাঁদা যাবেনা। সামনে কাঁদা মানে আবেদন হারানো। সে বারবার কষ্ট দিবে আপনি বারবার কাঁদবেন, এতে সে আপনার কষ্টে সমব্যথী না হয়ে উলটো বিরক্ত হবে। মনে রাখবেন, কষ্টের কথা একবার শুনতেই কষ্ট লাগে, বারবার শুনতে বিরক্ত লাগে।

মানুষটা বারবার চলে যাওয়ার হুমকি দেয়, আপনি কান্নাকাটি করে ধরে রাখেন, ইমোশনাল কথা বলে ফেরান। ইমোশন কেটে গেলে সে আবার চলে যেতে চায়, আপনি হাত পা ধরে ফেরানোর চেষ্টা করেন। ওয়েট, এতটা সস্তা করবেন না নিজেকে। যার যাওয়ার সে যাবেই। এভাবে ধরে বেঁধে রেখে কিচ্ছু হবেনা। তাকে চলে যেতে দিন। থাকার হলে সে নিজেই থাকবে, যাওয়ার হলে চলে যাবে। মনে রাখবেন, প্রিয় মানুষ দূরে গেলে আরো বেশি আপন হয়ে যায়। যে আপনাকে ছেড়ে গেছে সেও যদি আপনাকে প্রিয় মানুষ ভাবে তাহলে তো আপন লাগার কথা। সে আপন লাগা থেকে ফেরার কথা, না ফিরলে বুঝবেন আপনি আর তার প্রিয় মানুষের তালিকায় নেই। কাঁদবেন তখন, খুব কাঁদবেন। তবে একা একা, তার সামনে নয়। তাকে দেখাতে হবে আপনি ভাল আছেন।

তার সবকিছু জানার অধিকার আপনার আছে। যখন এই অধিকার সে খর্ব করা শুরু করবে তখন ভয় পান। এটা স্রেফ আপনার মাথায় বন্দুক ধরে নিজে চলে যাওয়ার চেষ্টা। অর্থাৎ সে চলে যাবে দোষ আপনার। আপনি তার ব্যক্তিগত স্বাধীনতা খর্ব করছেন, তাই চলে যাচ্ছে সে। যেতে দিন, হাত পা ধরে নিজেকে সস্তা করবেন না। তার মনে এখন যাওয়ার ঢেউ। এই ঢেউ ফেরানোর ক্ষমতা আপনার নেই। চুপচাপ থাকেন। নিজের আবেদন বজায় রাখুন। আপনার এই চুপচাপ থাকা তাকে ভেতর ভেতর একটু হলেও পোড়াবে। সবাই দাম চায়, দাম না পেলে সবারই পোড়ায়।

যে কোন পরিস্থিতিতে নিজেকে শক্ত রাখুন। তার সামনে নিজের দুর্বলতা প্রকাশ করবেন না। নিজের ব্যক্তিত্ব বজায় রাখবেন। দেখবেন আবেদন বাড়ছে, জাস্ট এটুকুই মেনে চলবেন।