ঢাকা ১২:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের ববি শাখার নেতৃত্বে ইব্রাহিম-শান্ত প্রতারণার মামলায় যুব-মহিলালীগ নেত্রী ও তার স্বামী রিমান্ডে শাহজালালে যৌথ অভিযানে ২ কেজি ১০৪ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার, গ্রেফতার ৪ যাত্রী গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী জাতীয় যুব কাউন্সিলের সভাপতি:মাসুদ আলম ইয়াংছা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত রামেবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন যুবলীগ নেতার মামলায় যুব-মহিলালীগ নেত্রী গ্রেফতার! ৪ মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি’কে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করেছে দাগনভূঁঞা থানা পুলিশ দূর্নীতিমুক্ত রিহ‍্যাব গড়তে চান আলিমুল্লাহ খোকন টিলাগাঁও আজিজুন নেছা উচ্চ বিদ্যালয়ের তৃতীয় বারের মত সভাপতি নির্বাচিত শামিম আহমদ

বাকেরগঞ্জে কাফিলার সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা;অভিযোগের তীর মহেশপুরের কাপড় ব্যবসায়ী শিপন ব্যাপারীর দিকে!

  • আপডেট সময় : ১০:১৪:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ অক্টোবর ২০২৩
  • ২৩২৮ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:- বাকেরগঞ্জ উপজেলার ১৪ নং নিয়ামতি ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড কাফিলা নিবাসী সৌদি প্রবাসী মোঃ সজীব হাওলাদারের স্ত্রীর বিরুদ্ধে তিন মাসের অন্তঃসত্তার হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সূত্র জানায়, উপজেলার ১৪ নং নিয়ামতি ইউনিয়নের ১ নং কাফিলা গ্রামের মোঃ জামাল হাওলাদার ও পোড়াচিনা সরকারি প্রাইমারি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মোসাঃ হাফিজা বেগমের পুত্র সৌদি প্রবাসী মোঃ সজীব হাওলাদার উপজেলার বাংলাবাজার নামক ও ভাই স্থানের সোনিয়া বেগম নামক এক মেয়ের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়
এবং তাদের ঔরসে একটি কন্যা সন্তান জন্ম লাভ করেন।দীর্ঘদিন যাবৎ সজীব চাকরির সুবাদে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। অতঃপর তিনি বিবাহের উদ্দেশ্যে দেশে আসেন। দেশে এসে পুনরায় তিনি আবার তার চাকুরি রক্ষার্থের জন্য তার স্ত্রী এবং সন্তান,মা বাবা কে রেখে পুনরায় সৌদির আরবে গমন করেন। গত ১০ অক্টোবর হাফিজা বেগমের পুত্রবধূ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয় আঙ্গুল কাটা নামক বাজারের পল্লী চিকিৎসক শান্তি রঞ্জন দে ওরফে কালা চাঁনকে ফোন করে তাদের বাড়িতে নিয়ে আসেন। ওই পল্লী চিকিৎসক তাহার পুত্রবধূর সোনিয়ার শারীরিক অবস্থা দেখে বিষয়টি সন্দেহ হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল প্রেরণ করেন জাহা ওই পল্লী চিকিৎসক সাংবাদিকদের এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে জানান। সোনিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতির জন্য শাশুড়ি বরিশাল নিয়ে ভালো মানের চিকিৎসকদের পরামর্শ গ্রহণ করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে সোনিয়ার শাশুড়িকে জানান যে,আপনার পুত্রবধূর গর্ভে তিন মাসের বাচ্চা আছে ।অতঃপর সোনিয়ার শাশুড়ি মোসাঃ হাফিজা বেগম বিষয়টি মান-সম্মানের ভয়ে তড়িঘড়ি করে বাচ্চাটি গর্ভপাত করান। উক্ত বাচ্চাটি গর্ভপাত করানোর কারণে বর্তমানে তার পুত্রবধূ সোনিয়া হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বলে গোপন সূত্রে জানা যায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্যসহ একাধিক এলাকাবাসী ভিডিও সাক্ষাৎকারে জানান,সজীব সৌদি আরবে থাকার সুবাদে মহেশপুর বাজারের সখীর টেইলার্সের স্বত্বাধিকারী মোঃ শিপন বেপ্যারী তাহার মোটরবাইক নিয়ে প্রায়ই সন্ধ্যার পর তাদের বাড়িতে আসতো এবং আসার পর ঘন্টার পর ঘন্টা ওই বাড়িতে রাত কাটাতো বলে জানান। এমনকি হাফিজা বেগমের পুত্রবধু সোনিয়ার বাচ্চা মহেশপুর পড়ানোর সুবাদে তার দোকানে প্রায়ই আসা-যাওয়া করত বলে নাম প্রকাশ করার না শর্তে মহেশপুর বাজারের একাধীক ব্যবসায়ীরা সাংবাদিকদের নিকট ভিডিও সাক্ষাৎকারে জানান।অপরদিকে নাম প্রকাশ করার না শর্তে তাদের বাড়ির এক ভদ্রলোক জানান, এই অপকর্মের জন্য হাফিজা বেগমের বড় পুত্র মোঃ রাজীব হাওলাদার জড়িত আছেন বলে জানান।তবে এ বিষয়ে মহেশপুর বাজারের সুখী টেইলার্সের স্বত্বাধিকারী মোঃ শিপন ব্যাপারীর নিকট সত্যতা জানতে চাইলে অপরগতা প্রকাশ করে তিনি সাংবাদিকদের নিকট কথা বলতে রাজি না হয়ে বরং সাংবাদিক বিদ্বেষী আচরণ করেন।উক্ত ঘটনার সূত্র একাধীক এলাকাবাসীর নিশ্চিত করেছেন বলে জানান।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের ববি শাখার নেতৃত্বে ইব্রাহিম-শান্ত

বাকেরগঞ্জে কাফিলার সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা;অভিযোগের তীর মহেশপুরের কাপড় ব্যবসায়ী শিপন ব্যাপারীর দিকে!

আপডেট সময় : ১০:১৪:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ অক্টোবর ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক:- বাকেরগঞ্জ উপজেলার ১৪ নং নিয়ামতি ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড কাফিলা নিবাসী সৌদি প্রবাসী মোঃ সজীব হাওলাদারের স্ত্রীর বিরুদ্ধে তিন মাসের অন্তঃসত্তার হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সূত্র জানায়, উপজেলার ১৪ নং নিয়ামতি ইউনিয়নের ১ নং কাফিলা গ্রামের মোঃ জামাল হাওলাদার ও পোড়াচিনা সরকারি প্রাইমারি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মোসাঃ হাফিজা বেগমের পুত্র সৌদি প্রবাসী মোঃ সজীব হাওলাদার উপজেলার বাংলাবাজার নামক ও ভাই স্থানের সোনিয়া বেগম নামক এক মেয়ের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়
এবং তাদের ঔরসে একটি কন্যা সন্তান জন্ম লাভ করেন।দীর্ঘদিন যাবৎ সজীব চাকরির সুবাদে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। অতঃপর তিনি বিবাহের উদ্দেশ্যে দেশে আসেন। দেশে এসে পুনরায় তিনি আবার তার চাকুরি রক্ষার্থের জন্য তার স্ত্রী এবং সন্তান,মা বাবা কে রেখে পুনরায় সৌদির আরবে গমন করেন। গত ১০ অক্টোবর হাফিজা বেগমের পুত্রবধূ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয় আঙ্গুল কাটা নামক বাজারের পল্লী চিকিৎসক শান্তি রঞ্জন দে ওরফে কালা চাঁনকে ফোন করে তাদের বাড়িতে নিয়ে আসেন। ওই পল্লী চিকিৎসক তাহার পুত্রবধূর সোনিয়ার শারীরিক অবস্থা দেখে বিষয়টি সন্দেহ হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল প্রেরণ করেন জাহা ওই পল্লী চিকিৎসক সাংবাদিকদের এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে জানান। সোনিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতির জন্য শাশুড়ি বরিশাল নিয়ে ভালো মানের চিকিৎসকদের পরামর্শ গ্রহণ করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে সোনিয়ার শাশুড়িকে জানান যে,আপনার পুত্রবধূর গর্ভে তিন মাসের বাচ্চা আছে ।অতঃপর সোনিয়ার শাশুড়ি মোসাঃ হাফিজা বেগম বিষয়টি মান-সম্মানের ভয়ে তড়িঘড়ি করে বাচ্চাটি গর্ভপাত করান। উক্ত বাচ্চাটি গর্ভপাত করানোর কারণে বর্তমানে তার পুত্রবধূ সোনিয়া হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বলে গোপন সূত্রে জানা যায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্যসহ একাধিক এলাকাবাসী ভিডিও সাক্ষাৎকারে জানান,সজীব সৌদি আরবে থাকার সুবাদে মহেশপুর বাজারের সখীর টেইলার্সের স্বত্বাধিকারী মোঃ শিপন বেপ্যারী তাহার মোটরবাইক নিয়ে প্রায়ই সন্ধ্যার পর তাদের বাড়িতে আসতো এবং আসার পর ঘন্টার পর ঘন্টা ওই বাড়িতে রাত কাটাতো বলে জানান। এমনকি হাফিজা বেগমের পুত্রবধু সোনিয়ার বাচ্চা মহেশপুর পড়ানোর সুবাদে তার দোকানে প্রায়ই আসা-যাওয়া করত বলে নাম প্রকাশ করার না শর্তে মহেশপুর বাজারের একাধীক ব্যবসায়ীরা সাংবাদিকদের নিকট ভিডিও সাক্ষাৎকারে জানান।অপরদিকে নাম প্রকাশ করার না শর্তে তাদের বাড়ির এক ভদ্রলোক জানান, এই অপকর্মের জন্য হাফিজা বেগমের বড় পুত্র মোঃ রাজীব হাওলাদার জড়িত আছেন বলে জানান।তবে এ বিষয়ে মহেশপুর বাজারের সুখী টেইলার্সের স্বত্বাধিকারী মোঃ শিপন ব্যাপারীর নিকট সত্যতা জানতে চাইলে অপরগতা প্রকাশ করে তিনি সাংবাদিকদের নিকট কথা বলতে রাজি না হয়ে বরং সাংবাদিক বিদ্বেষী আচরণ করেন।উক্ত ঘটনার সূত্র একাধীক এলাকাবাসীর নিশ্চিত করেছেন বলে জানান।