ঢাকা ১১:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি জেলা কমিটি অনুমোদন সভাপতি কামরুজ্জামান সম্পাদক বাদশা এটিএন বাংলার চায়ের চুমুকে সংগঠক ও বিনোদন সাংবাদিক আবুল হোসেন মজুমদার ৭ ঘণ্টা অন্ধকারে রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের প্রধান কার্যালয় টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রদের সাথে বিকৃত যৌনাচার শিক্ষক’কে গ্রেফতার করেছে: সিআইডি সীতাকুণ্ডে হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন সীতাকুণ্ডে ট্রাকে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কা, চালক নিহত চট্টগ্রাম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে বাকেরগঞ্জে দোয়া মিলাদ অনুষ্ঠিত বাগেরহাটে সাংবাদিকের শাশুড়ির মৃত্যু বিভিন্ন মহলের শোক

বাকেরগঞ্জে সম্পত্তির লোভে মাকে খুন ঘরের মেঝেতে মাটি চাপা ৬ মাস পর কঙ্কালের সন্ধান!

  • আপডেট সময় : ০৭:৩৪:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪
  • ২০২৪ বার পড়া হয়েছে

খান মেহেদী :- বাকেরগঞ্জ উপজেলায় সম্পত্তির লোভে মাকে খুন করে ঘরের মেঝেতে মাটি চাপা দিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার ৬ মাস পর কঙ্কালের সন্ধান পেয়েছে স্থানীয়রা।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরামদ্দি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড কাটাদিয়া গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীন গাজীর স্ত্রী রিজিয়া পারভিন ছয় মাস আগে থেকে নিখোঁজ হয়ে যান। রিজিয়া পারভিন তার জরাজীর্ণ ঘরে একা বসবাস করতেন। অনেক আগে স্বামী মারা গেলে বিধবা রিজিয়া পারভিন দুই ছেলে সন্তান নিয়ে তার ঐ ঘরে বসবাস করতেন। বড় ছেলে সোহাগ গাজী চার বছর আগে মারা যায়। এরপর তিনি মানসিকভাবে অনেকটা ভেঙে যান। এরপর থেকেই ছোট ছেলে রাসেল গাজী সম্পত্তি বিক্রয়ের জন্য তার মায়ের উপর নির্যাতন শুরু করে। একপর্যায়ে সোহাগ তার মা রিজিয়া পারভিনকে বাড়িতে রেখে স্ত্রীকে নিয়ে পাশের ইউনিয়ন বরিশাল সদরের চন্দ্রমোন গ্রামে বসবাস শুরু করেন। রাসেল গাজী ঢাকার একটি টেক্সটাইল মিলে চাকরি করেন। মাঝেমধ্যে বাড়িতে এসে তার মায়ের সাথে সম্পত্তি নিয়ে ঝগড়া করত।

শরিবার (১৩ এপ্রিল) রাসেলের স্ত্রী ও শাশুড়ি তার মায়ের ঐ জরাজীর্ণ ঘরে আসে। তারা ঘরের মধ্যে প্রবেশ করলে ঘরের মেঝের উপরে পুরনো কিছু কাপড়-চোপড় পড়ে থাকতে দেখে। ওই কাপড় গুলো তুলে ফেললে ঘরের মেঝের মাটি কিছু স্থানে খোঁড়া অবস্থায় দেখে তখন আশপাশের প্রতিবেশীদের ডাক দেয়। স্থানীয় লোকজন এসে ওই মাটি খুঁড়তে থাকলে রিজিয়া পারভিনের কঙ্কাল দেখতে পায়।

এই ঘটনায় রিজিয়া পারভীনের ভাই, মাসুদ হাওলাদার বাকেরগঞ্জ থানা একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে মাসুদ হাওলাদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার বোনের বড় ছেলে সোহাগ গাজী চার বছর আগে মারা গেলে আমার বোনের উপর তার ছোট ছেলে রাসেল গাজী সম্পত্তির জন্য বিভিন্ন সময়ে নির্যাতন করতো। ওর বাবার রেখে যাওয়া  অনেক সম্পত্তি আছে। রাসেল তার স্ত্রীকে নিয়ে পাশের ইউনিয়নে বসবাস করে। বাবার রেখে যাওয়া সম্পত্তি বিক্রি করার জন্য মায়ের সাথে প্রায় সময় ঝামেলায় জড়াতো। আমি বাকেরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছি। পুলিশ তদন্ত করে অপরাধীকে আইনের আওতায় আনবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ১৪ এপ্রিল বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আফজাল হোসেন বলেন, ‘ঘরের মধ্যে মেঝেতে কঙ্কাল রয়েছে। এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা স্থানে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। আইনি প্রক্রিয়ায় আগামীকাল কঙ্কাল উদ্ধার করা হবে। তদন্ত করে এই খুনের রহস্য দ্রুত সময়ের মধ্যে বের করা হবে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি জেলা কমিটি অনুমোদন সভাপতি কামরুজ্জামান সম্পাদক বাদশা

বাকেরগঞ্জে সম্পত্তির লোভে মাকে খুন ঘরের মেঝেতে মাটি চাপা ৬ মাস পর কঙ্কালের সন্ধান!

আপডেট সময় : ০৭:৩৪:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

খান মেহেদী :- বাকেরগঞ্জ উপজেলায় সম্পত্তির লোভে মাকে খুন করে ঘরের মেঝেতে মাটি চাপা দিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার ৬ মাস পর কঙ্কালের সন্ধান পেয়েছে স্থানীয়রা।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরামদ্দি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড কাটাদিয়া গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীন গাজীর স্ত্রী রিজিয়া পারভিন ছয় মাস আগে থেকে নিখোঁজ হয়ে যান। রিজিয়া পারভিন তার জরাজীর্ণ ঘরে একা বসবাস করতেন। অনেক আগে স্বামী মারা গেলে বিধবা রিজিয়া পারভিন দুই ছেলে সন্তান নিয়ে তার ঐ ঘরে বসবাস করতেন। বড় ছেলে সোহাগ গাজী চার বছর আগে মারা যায়। এরপর তিনি মানসিকভাবে অনেকটা ভেঙে যান। এরপর থেকেই ছোট ছেলে রাসেল গাজী সম্পত্তি বিক্রয়ের জন্য তার মায়ের উপর নির্যাতন শুরু করে। একপর্যায়ে সোহাগ তার মা রিজিয়া পারভিনকে বাড়িতে রেখে স্ত্রীকে নিয়ে পাশের ইউনিয়ন বরিশাল সদরের চন্দ্রমোন গ্রামে বসবাস শুরু করেন। রাসেল গাজী ঢাকার একটি টেক্সটাইল মিলে চাকরি করেন। মাঝেমধ্যে বাড়িতে এসে তার মায়ের সাথে সম্পত্তি নিয়ে ঝগড়া করত।

শরিবার (১৩ এপ্রিল) রাসেলের স্ত্রী ও শাশুড়ি তার মায়ের ঐ জরাজীর্ণ ঘরে আসে। তারা ঘরের মধ্যে প্রবেশ করলে ঘরের মেঝের উপরে পুরনো কিছু কাপড়-চোপড় পড়ে থাকতে দেখে। ওই কাপড় গুলো তুলে ফেললে ঘরের মেঝের মাটি কিছু স্থানে খোঁড়া অবস্থায় দেখে তখন আশপাশের প্রতিবেশীদের ডাক দেয়। স্থানীয় লোকজন এসে ওই মাটি খুঁড়তে থাকলে রিজিয়া পারভিনের কঙ্কাল দেখতে পায়।

এই ঘটনায় রিজিয়া পারভীনের ভাই, মাসুদ হাওলাদার বাকেরগঞ্জ থানা একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে মাসুদ হাওলাদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার বোনের বড় ছেলে সোহাগ গাজী চার বছর আগে মারা গেলে আমার বোনের উপর তার ছোট ছেলে রাসেল গাজী সম্পত্তির জন্য বিভিন্ন সময়ে নির্যাতন করতো। ওর বাবার রেখে যাওয়া  অনেক সম্পত্তি আছে। রাসেল তার স্ত্রীকে নিয়ে পাশের ইউনিয়নে বসবাস করে। বাবার রেখে যাওয়া সম্পত্তি বিক্রি করার জন্য মায়ের সাথে প্রায় সময় ঝামেলায় জড়াতো। আমি বাকেরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছি। পুলিশ তদন্ত করে অপরাধীকে আইনের আওতায় আনবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ১৪ এপ্রিল বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আফজাল হোসেন বলেন, ‘ঘরের মধ্যে মেঝেতে কঙ্কাল রয়েছে। এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা স্থানে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। আইনি প্রক্রিয়ায় আগামীকাল কঙ্কাল উদ্ধার করা হবে। তদন্ত করে এই খুনের রহস্য দ্রুত সময়ের মধ্যে বের করা হবে।